Thursday , July 7 2022
Home / স্বাস্থ্য সেবা / কাঠ বাদামের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জেনে নিন

কাঠ বাদামের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জেনে নিন

কাঠ বাদামের উপকারিতা প্রচুর।কাঠ বাদাম খেতে সুস্বাদু ও কাঠ বাদামের পুষ্টিগুণ প্রচুর থাকায় এর চাহিদা ব্যাপক। এটি বাদাম নামে পরিচিতি লাভ করলেও মূলত এটি এক ধরনের খাদ্য বীজ। এটি আমাদের দেশে সচারচর পাওয়া যায় না। তবে উন্নত মানের কাঠবাদাম পাওয়া যায় উত্তর আফ্রিকা, পশ্চিম এশিয়াতে। কাঠ বাদামে রেয়েছে ভিটামিন এবং মিনারেলে ভরপুর। এছাড়া কাঠ বাদামে রয়েছে ডায়েট ফাইবার যেটা হার্ট কে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। কাঠবাদামের বহুবিধ উপকারিতা রয়েছে ।যেমন শরীরের কলেস্ট্রল কমায়, ক্যানসার রোধ করে, শক্তি সঞ্চার করে, ত্বক কে উজ্জ্বল রাখে। নিয়মিত কাঠ বাদাম খেলে শরীরের ত্বক,চুল ও স্বাস্থ্যের জন্য ব্যাপক উপকার।

কাঠ বাদামের উপকারিতা
কাঠ বাদামের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জেনে নিন

কাঠ বাদামের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জেনে নিন

 

কাঠ বাদামের উপকারিতা

কাঠ বাদাম আমাদের অতি পরিচিত খাদ্য।কাঠ বাদামের পুষ্টিগুণ প্রচুর থাকায় এটি সকলের কাছে খুব প্রিয় খাদ্য। কাঠবাদামে রয়েছে মনোআনস্যাচুরেটেড ও পলিআনস্যাচুরেটেড অয়েল, ফলিক অ্যাসিড জিঙ্ক, ও প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।এছাড়া কাঠ বাদামে যেসকল পুষ্টি উপাদান রয়েছে তা বিস্তারিত আলোচনা করা হলো। প্রতি ১০০ গ্রাম কাঠ বাদামে রয়েছে–

 

প্রতি ১০০ গ্রাম কাঠ বাদামে রয়েছে
এনার্জি- ৫৭৮ কিলোক্যালরি
কার্বোহাইড্রেট- ২০গ্রাম
আঁশ- ১২ গ্রাম
ফ্যাট- ৫১ গ্রাম
প্রোটিন- ২২ গ্রাম
থায়ামিন- ০.২৪ মিলিগ্রাম
নিয়াসিন- ৪ মিলিগ্রাম
রাইবোফ্লেভিন- ০.৮ মিলিগ্রাম
প্যান্টোথেনিক অ্যাসিড- ০.৩ মিলিগ্রাম
ভিটামিন ই- ২৬.২২ মিলিগ্রাম
ভিটামিন বি৬- ০.১৩ মিলিগ্রাম
ক্যালসিয়াম- ২৪৮ মিলিগ্রাম
আয়রন- ৪ মিলিগ্রাম
ম্যাগনেসিয়াম- ২৭৫ মিলিগ্রাম
পটাশিয়াম- ৭২৮ মিলিগ্রাম
উপরের সকল তথ্য থেকে বুঝা যায় কাঠ বাদামের পুষ্টিগুণ কত।

কাঠ বাদামের উপকারিতা
মস্তিষ্ক গঠনে কাঠবাদামে ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই গর্ভবতী মা এবং বাড়ন্ত শিশুদের কাঠবাদাম খাওয়া দরকার। রোজ সকালে কাঠবাদাম খেলে স্মৃতিশক্তি সহজে ভ্রষ্ট হয় না। প্রতিদিন কাঠবাদাম খেলে ভালো কোলেস্টেরল বা হাই ডেনসিটি লাইপোপ্রোটিন এর মাত্রা বৃদ্ধি পায় এবং খারাপ কোলেস্টেরল বা লো ডেনসিটি লাইপোপ্রোটিন এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণ রাখতে সাহায্য করে। কাঠ বাদামের উপকারিতা ব্যাপক থাকায় এটি বহু ভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। নিচে কাঠ বাদামের উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

 

স্বাস্থ্যের যত্নে কাঠ বাদাম তেল
প্রত্যেকদিন ১০ গ্রাম কাঠ বাদাম খেলে, আমরা অনেক অসুখ থেকে নিজেকে সুস্থ রাখতে পারব।

ক) কাঠ বাদামে মনসেচুরেটেড ফ্যাট রয়েছে। এটি শরীরে কলেস্ট্রল এর পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে থাকে।তাই প্রতিদিন কাঠ বাদাম খেলে শরীরে HDL কলেস্ট্রল অথবা ভালো কলেস্ট্রল বাড়াতে সাহায্য করে। একটি রিসার্চ এ দেখা গিয়েছে যারা প্রত্যেকদিন ১ টি করে কাঠবাদাম খেয়েছে তাদের কলেস্ট্রল ৪.৪% কমেছে এবং যারা প্রতিদিন দুটি করে খেয়েছে তাদের কমেছে ৯.৪% ।

খ) কাঠ বাদামে যে সব ফাইবার আছে যেটি কলন ক্যানসার রোধে সহায়ক। তাছাড়া কাঠ বাদামে ভিটামিন ই, flavonoi এবং Phytochemicals আছে যেটি ব্রেস্ট ক্যানসার রোধে সহায়তা করে থাকে।

গ) কাঠ বাদাম শরীরে ব্লাড সুগার এর ব্যালেন্স রাখতে কার্যকারী ভূমিকা পালন করে। তাই ডায়বেটিস রোগীদের জন্য এটি অনেক উপকারী।

ঘ) কাঠ বাদাম তেল শরীরের শক্তি সঞ্চালন করে থাকে। এতে আছে ফসফরাস, রিবফ্লাবিন,কপার, যেটা শরীরে শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

ঙ) কাঠ বাদামে ফসফরাস, ক্যালসিয়াম,ভিটামিন ডি আছে । এটি আমাদের শরীরের হাড় এবং দাঁত মজবুত করে। এছাড়া যাদের হাড় ক্ষয়, আরথাইটিস রোগ আছে, তাদের জন্য কাঠবাদাম তেলের মালিশ অনেক ভালো।

চ) এছাড়াও কাঠ বাদাম এনিমিয়া, জন্ম গত ত্রুটি, মস্তিষ্ক এর শক্তি বাড়াতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

 

ত্বকের যত্নে কাঠবাদাম
ত্বকের যত্নে কাঠবাদাম এর গুরুত্ব অনেক।আমরা সকলেই নিজ নিজ ত্বককে সুন্দর রাখতে পছন্দ করি।আর বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে ত্বকের উপর।তাইতো শহরের অলি গলিতে পার্লার গড়ে উঠেছে।সবাই মুখ থুবরে পড়ছে পার্লার এর দিকে ।মেয়েরা পার্লার ছাড়া কিছুই ভাবতে পারছেনা ।কিন্তু ঘরে বসে ত্বকের যত্নে কাঠবাদাম ব্যবহার করে পার্লার কে দূরে রাখতে পারে। কাঠ বাদাম ব্যবহার করে ত্বককে দীর্ঘদিন সুস্থ রাখতে পারবেন।নিচে ত্বকের যত্নে কাঠবাদাম এর ব্যবহার আলোচনা করা হলো।

ক) কাঠবাদামে রয়েছে ভারী ময়েশ্চারাইজার। তবে ভারী হলেও এটি মুখের ব্ল্যাকহেডস, ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে। এটি বিশেষ করে তৈলাক্ত ত্বক এ যারা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারে না, তাদের জন্য অনেক উপকারী।

খ) আমরা জানি কাঠ বাদামের তেল হল প্রাকৃতিক ময়েশচারাইজার। এতে কোন কেমিক্যাল অথবা প্রিজেরভেটিভ নেই। ফলে এই তেল কে সিরাম হিসাবেও ব্যবহার করা যেতে পারে। মুখ পরিষ্কার করে চোখ সহ ,পুরা মুখ ঘড়ির কাটার উলটো দিকে আপনে মাসাজ করুন। ফলাফল স্বরূপ নমনীয় এবং তুলতুলে ত্বক অতি সহজেই পাবেন। তাছাড়া এটি মুখের লোমগ্রন্থি বন্ধ করে না, তাই ব্রণ হবারও ভয় থাকে না।

গ) কাঠবাদামে ভিটামিন ই আছে । ফলে এটি ত্বকের উজ্জলতা বাড়ায়। ত্বকে এটি নিয়মিত তেল দ্বারা মাসাজ করলে ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বারে, তাতে করে ত্বক সুস্থ থাকে।

ঘ) কাঠ বাদামে ভিটামিন ডি আছে । তাই ছোট শিশুদের এই তেল দিয়ে সমস্ত দেহ মাসাজ করলে, হাড় মজবুত হয়।

ঙ) কাঠ বাদাম তেল আমাদের চোখের নীচে কালো দাগ দূর করে। তাছাড়া প্রতিরাত্রে কাঠ বাদাম বেটে, ওই পেস্ট রাতে ঘুমানোর সময় চোখে দিয়ে ঘুমালে, চোখের নীচের কালো দাগ চলে যায়। চোখের বলিরেখা, চোখ ফুলা ভাবও কমে যায়। কাঠ বাদাম চোখের নীচের দাগ দূর করতে যেকোনো ভালো আই ক্রিম এর থেকে অনেক ভালো।

 

চ) কাঠ বাদামে আছে ভিটামিন ই । ভিটামিন ই ত্বকের জন্য অতান্ত কার্যকারী উপাদান। এটি ত্বক কে সূর্যের ক্ষতিকর রশনির হাত থেকে বাঁচায় এবং ত্বক কে ড্যামেজ এর হাত থেকে রক্ষা করে।
তবে যাদের ত্বকে সান বার্ন আছে, তারা এটি থেকে পরিত্রাণ পেতে কাঠ বাদাম তেল ব্যবহার করতে পারেন।

ছ) কাঠ বাদামের তেল খুব তাড়াতাড়ি শরীর শুষে নেয়। তাই এটি যেকোনো সময়ে কাঠবাদাম তেল শরীরে লোশনের পরিবর্তে দেওয়া যাবে।

জ) কাঠ বাদাম তেলে ফ্যাটি অ্যাসিড আছে । ফলে এটি স্কিন এর যেকোনো চর্ম সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে।

ঝ) কাঠ বাদাম আমাদের ত্বকের বলিরেখা দূর করতে সাহায্য করে। তবে প্রতিদিন কাঠ বাদামের তেল দিয়ে ত্বক মাসাজ করলে , ত্বকের বলি রেখা কমবে। এছাড়া লেবু, মধু,কাঠ বাদাম তেল মিশিয়ে মুখে মাস্ক হিসাবে ব্যবহার করলে ত্বক হয়ে উঠবে দীপ্তিময় এবং মুখের বয়সের ছাপ দূরে চলে যাবে।

ঞ) কাঠ বাদাম স্ক্রাব হিসেবেও কাজ করে থাকে। তবে কাঠ বাদাম দানা দানা রেখে গুড়ি করে, এর সাথে মধু, এবং টক দই দিয়ে মুখ আলতো আলতো করে মাসাজ করলে, স্ক্রাব এর কাজ হয়ে যাবে।

ট) মেয়েদের ভারী মেকাপ তুলতে কাঠ বাদাম তেল সামান্য একটু নিয়ে পুরা মেকাপ পরিষ্কার করা যাবে।

চুলের যত্নে কাঠ বাদাম
চুলের যত্নে কাঠ বাদাম এর জুরি মেলা ভার। বর্তমানে চলের যন্তে মেয়েরা কত কিছুই করছে। কিন্তু কোন ভাবেই চুল পড়া রোধ করতে পারছেনা। তাই চুলের যত্নে কাঠ বাদাম ব্যবহার করলে এই সমস্যা সমাধান হবে।নিচে চুলের যত্নে কাঠ বাদাম এর বিস্তারিত জানবো।

ক) কাঠ বাদামে আছে চুল বান্ধব মনো ফ্যাটি অ্যাসিড, তার সাথে ভিটামিন ই,এ, ডি, বি১, বি২ এবং বি৬। এরা চুল কে নিয়মিত পুষ্টি দেয়, চুল কে শক্ত করে। ফ্যাটি অ্যাসিড চুল কে সফট, সোজা এবং সিল্কি রাখতে সাহায্য করে।

কাঠ বাদামের উপকারিতা
খ) কাঠ বাদামে উচ্চ পরিমাণের ফসফরাস রয়েছে। এটি ভালো চুল গজাতে সাহায্য করে। তাছাড়া চুল পড়ে সাধারনত ফসফরাস এর অভাবে। প্রতিদিন কাঠ বাদাম খেলে ফসফরাসের অভাব মিটবে।

গ) যারা চুল এর খুশকি নিয়ে চিন্তিত, তারা ১:১ অনুপাতে কাঠ বাদাম তেল + নিম তেল মিশিয়ে চুলে লাগাতে পারেন। এটি সারারাত রেখে দিন ও সকালে উঠে শ্যাম্পু করে ফেলেন। আশা করি খুশকির সমস্যা আর থাকবে না।

 

ঘ) কাঠ বাদাম তেল এর সাথে রস্মারি এবং ল্যাভেন্ডার এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে মাথার তালু নিয়মিত ম্যসাজ করলে চুল পড়া কমবে।

ঙ) কাঠ বাদাম তেল, মেথি গুঁড়া, ক্যাস্টর অয়েল, নারিকেল তেল মিশিয়ে চুলে লাগালে চুল এর আগা শক্ত হবে, চুল পড়া কমবে, চুল তাড়াতাড়ি বাড়বে।

আরো কিছু পোস্ট আপনার জন্য প্রয়োজনে দেখতে পারেন

হার্ট অ্যাটাক থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব?

প্রচণ্ড মানসিক চাপ ?

আপনি কি মা হতে চলেছেন?

পায়ের গোড়ালি ফাটা দূর করার উপায়

চোখের ভ্রু ঘন, বড় লম্বা করা যায় কি করে ?

চুল পড়া বন্ধ করার উপায়

দ্রুত নখ বড়ো করার উপায়

রিংকেল দূর করার উপায়

উজ্জ্বল ব্রণের দাগ মুক্ত ত্বক পাওয়ার ঘরোয়া পদ্ধতি

খুব সহজেই চকচকে উজ্জল ফর্সা ত্বক পাওয়ার কৌশল

পেটের সমস্যার চিরতরে সম্পূর্ণ কার্যকরী হেলথ টিপস

হাত পায়ের যত্ন

সাজগোজের পর কিভাবে make-up তুলতে হবে ?

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। প্রতিদিনের আপডেট পেতে আমাদের Facebook লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন।
ধন্যবাদ।

শেয়ার করতে ভুলবেন না

Check Also

এখানে খরচ

এখানে খরচ নাই ওষুধ পাই বিনা মূল্যে

এখানে খরচ নাই,ওষুধ পাই বিনা মূল্যে নরসিংদী সাদত স্মৃতি পল্লী প্রকল্পে যারা ডাক্তার দেখাতে ইচ্ছুক, ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.