Monday , July 4 2022
Home / স্বাস্থ্য সেবা / কোন ভিটামিনের কোন কাজ জেনে নিন এক ঝলকে?

কোন ভিটামিনের কোন কাজ জেনে নিন এক ঝলকে?

আমরা অনেকই জানি না কোন ভিটামিনের কোন কাজ । ভিটামিন মানবদেহের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ । শরীরে বিভিন্ন ভিটামিনের অভাবে অনেক ধরনের রোগ হয়ে থাকে । ভিটামিন বা খাদ্যপ্রাণ হলো এক শ্রেণির জৈব যৌগ যা অনেক খাদ্যে স্বল্প মাত্রায় থাকে এবং জীবের পুষ্টি সাধন ও স্বাভাবিক বৃদ্ধি ও বিকাশে এবং প্রজননে অত্যাবশ্যকীয় ভূমিকা পালন করে । ভিটামিন শরীরে ক্যালোরি বা শক্তির জোগান না দিলেও যাতে আমরা খাদ্য থেকে পাওয়া ক্যালোরি বা শক্তি ভালো ভাবে ব্যবহার করতে পারি সেই ব্যবস্থা নিশ্চিত করে।

কোন ভিটামিনের
কোন ভিটামিনের কোন কাজ জেনে নিন এক ঝলকে

কোন ভিটামিনের কোন কাজ জেনে নিন এক ঝলকে

 

তাই স্বাভাবিক ভাবে নীরোগ ও সুস্থ শরীরের জন্য আমাদের দরকার প্রয়োজনীয় ভিটামিন। কিন্তু আমরা অনেক খাদ্য গ্রহন করি যা আমাদের শরীরে ভিটামিনের প্রয়োজন স্বাভাবিকের চাইতেও বাড়িয়ে দেয়। যেমন: রাত জাগা ,প্রচুর জাঙ্ক ফুড খাওয়া, ধুমপান করা ইত্যাদি। তাই আমাদের উচিত ভিটামিন ও খনিজ উপাদান সমৃদ্ধ খাবার নিয়মিত খাওয়া ।

নিচে কোন ভিটামিনের কোন কাজ তা সর্স্পকে জানবো ।

ভিটামিন বি এর কাজ বা গুরুত্ব:

» পেশি ও স্নায়ুকে শক্তিশালী করতে ভূমিকা রাখে।

» হজমে সহায়তা করা ভিটামিন বি এর কাজ ।

» হোমোসিসটিন এর মাত্রা কমাতে সহায়তা করে।

» আমাদের শরীরের ত্বক সুস্থ রাখা ভিটামিন বি এর কাজ ।

» হিমোগ্লোবিন তৈরীতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা ভিটামিন বি এর কাজ ।

কোন ভিটামিনের কোন কাজ

ভিটামিন বি এর উৎস:

ডিম,মাছ,মাংস দুগ্ধজাত খাবার, টমেটো, গোল আলু, চীনাবাদাম, কলা, ও সকল ধরনের খাদ্যশস্যে ভিটামিন বি রয়েছে ।আর এই গুলো হল

ভিটামিন বি এর উৎস ।

ভিটামিন সি এর কাজ বা গুরুত্ব :

» চর্বি ও আমিষ বিপাকে সহায়তা করে।

» দাঁত ও মাড়ি সুস্থ রাখা ভিটামিন সি এর কাজ ।

» কোলাজেন নামক আমিষ তৈরি ও রক্ষণাবেক্ষণে সাহায্য করে।

» আমাদের শরীরের চামড়া মসৃণ ও উজ্জ্বল রাখা ভিটামিন সি এর কাজ ।

» ক্ষতস্থান তাড়াতাড়ি শুকাতে ও সংক্রামক রোগ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা ভিটামিন সি এর কাজ ।

ভিটামিন সি এর উৎস:
আমরা জানি ভিটামিন সি এর উৎস মানে বিভিন্ন টক জাতীয় ফল যেমন :লেবু, আমড়া, আমলকী, পেয়ারা, আনারস, কমলালেবু এছাড়া সবুজ শাকসবজি যেমন: ফুলকপি, বাঁধাকপি, লেটুসপাতা,কাঁচামরিচ, ধনেপাতা ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে। ভিটামিন সি পাকা ফল অপেক্ষায় কাঁচা ফল ও সবজিতে বেশি পাওয়া যায়। ভিটামিন সি এর উৎস জেনে প্রতিদিন এই ভিটামিন গ্রহন করতে হবে । এর কারন ভিটামিন সি আমাদের দেহে মজুত থাকে না ।

পায়ে পানি আসা সমস্যায় করণীয় কি

ভিটামিন এ এর কাজ ও গুরুত্ব
» হাড় ও দাত তৈরিতে সাহায্য করে।

» চোখের দৃষ্টিশক্তি স্বাভাবিক রাখা ভিটামিন এ এর কাজ ।

» আমাদের শরীরের ত্বকের কোষ ভালো রাখে ফলে ত্বক মসৃণ থাকে।

» সংক্রামক রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি করেতে ভিটামিন এ এর কাজ করে থাকে ।

» প্রজনন ক্ষমতা অক্ষুণ্ণ রাখা শরীরের গঠন ও বৃদ্ধি করা ভিটামিন এ এর কাজ ।

হার্ট অ্যাটাক হওয়ার সম্ভাবনা আছে কিনা জানার উপায়
ভিটামিন এ এর উৎস:
আম,কাঁঠাল, বেল,পাকা পেঁপে, জাম, কলা, কমলা, লাউ,টমেটো ,গাজর,পালংশাক, মিষ্টিকুমড়া, এবং গাঢ় সবুজ শাকসবজিতে প্রচুর ভিটামিন এ রয়েছে । তাছাড়া গরু ও মুরগির কলিজা, ডিম,দুধ, দই, মাছের তেল ও ছোট মাছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ পাওয়া যায়। আর এ গুলো ভিটামিন এ এর উৎস ।

ভিটামিন ডি এর কাজ বা গুরুত্ব:
» দেহে ক্যালসিয়ামের পরিমাণ বাড়িয়ে তুলা ভিটামিন ডি এর কাজ ।

» চোখের সমস্যাকে দূর করা ভিটামিন ডি এর কাজ ।

» পেশি সংক্রান্ত সমস্যা দূর করে থাকে ।

» আমাদের শরীরের কোলেস্টেরল কমাতে সহায়তা করা ভিটামিন ডি এর কাজ ।

» দীর্ঘকালীন মাথাব্যথা কমাতে এবং ওজন হ্রাস (বিশেষত মহিলাদের) করতে ভিটামিন ডি কাজ করে থাকে ।

ভিটামিন সি এর অভাবজনিত রোগ জেনে নিন সহজেই

ভিটামিন ডি এর উৎস:
ডিমের সাদা অংশ,মাশরুম, ও বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ডি রয়েছে। এ ছাড়া ভিটামিন ডি এর উৎস হিসাবে কড লিভার অয়েল রাখা হয় ।

ভিটামিন ই এর কাজ বা গুরুত্ব:
» রক্ত তৈরীতে ভিটামিন ই সহায়তা করে।

» রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করায় ভিটামিন ই এর কাজ ।

» ভ্রূণের স্বাভাবিক বৃদ্ধিতে সাহায্য করা ভিটামিন ই এর কাজ ।

» রক্তক্ষরণ বন্ধে সাহায্য করে থাকে ।

» হৃদরোগ,ডায়াবেটিস, ক্যান্সার, স্টোক ইত্যাদি রোগ প্রতিরোধ কর ভিটামিন ই এর কাজ ।

কিডনিতে পাথর হয় যে প্রধান ৬টি কারণে মানুষের

ভিটামিন ই এর উৎস:
কাঠবাদাম, সূর্যমুখীর বীজ, পেস্তাবাদাম, চীনাবাদাম, ভেষজ, পালংশাক,শুকনো এপ্রিকট,কচুর মুল, ব্রোকলি ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই রয়েছে । আর এই গুলো ভিটামিন ই এর উৎস ।

ভিটামিন কে এর কাজ বা গুরুত্ব :
» হাঁড়ের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ভিটামিন কে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে ।

» ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করে থাকে।

» হৃৎপিন্ড ভালো রাখায় ভিটামিন কে এর কাজ ।

» মস্তিষ্কের কার্যক্রম সবসময় ভালো রাখা ভিটামিন কে এর কাজ ।

পুরুষের যৌন দূর্বলতা দূর করার টিপস জেনে নিন এক ঝলকে

ভিটামিন কে এর উৎস:
সবুজ শাকসবজি যেমন: বাঁধ্ধাকপি,পালংশাক,মটরশুঁটি, ফুলকপি,সয়াবিন, দুধ, কলিজা ইত্যাদিতে ভিটামিন কে প্রচুর পরিমাণে রেয়েছে । তাছাড়া মানব অন্ত্রে অবস্থিত জীবাণুরা ভিটামিন কে তৈরীতে সক্ষম। উপরে আমরা জানতে পারলাম কোন ভিটামিনের কোন কাজ ।

ভিটামিন ছাড়াও জেনে নেই কোন খাবারে কি আছে আর এর উপকারিতা কি।

» দুধে থাকে যে উপাদান— ল্যাকটিক এসিড।

» আয়োডিনের অভাব হলে — গলগন্ড রোগ হয়।
» তাপে নষ্ট হয় তা হল— ভিটামিন সি।

» শিশুদের রিকেটাস রোগ হওয়ার কারন— ভিটামিন ডি এর অভাবে।
» মিষ্টি কুমড়া হলো — ভিটামিন জাতীয় খাদ্য।
» মিষ্টি আলু হলো — শ্বেতস্বার জাতীয় খাদ্য।
» শিমের বিচি হলো — আমিষ জাতীয় খাদ্য।
» সর্বাধিক স্নেহ জাতীয় পদার্থ বিদ্যমান থাকে — দুধে।
» রক্তশূন্যতা দেখা দেয়ার কারন — আয়রনের অভাবে।
» দুধের রং সাদা হওয়ার কারন — প্রোটিনের জন্য।
» ভিটামিন সি এর আরেক রাসায়নিক নাম — অ্যাসকরবিক এসিড।
» প্রোটিন তৈরিতে ব্যবহৃত হয় সাধরনত — অ্যামাইনো এসিড।
» কচুশাকে প্রচুর থাকে — লৌহ।

» সূর্য কিরণে আছে — ভিটামিন ডি।

» শরীরে শক্তি যোগাতে দরকার যাহা — খাদ্য।
» সামুদ্রিক মাছে আছে — আয়োডিন।

» ল্যাথারাইজম রোগ হয় — খেসারি ডাল খেলে।
» সুষমখাদ্যে শর্করা, আমিষ ও চর্বি জাতীয় খাদ্যের অনুপাত থাকে — ৪:১:১।
» সবুজ তরিতরকারিতে সবচেয়ে বেশি থাকে যে উপাদান— খনিজ পদার্থ ও ভিটামিন।
» সবচেয়ে বেশি পাটাশিয়াম পাওয়া যায় তা হলো — ডাবে।
» মাড়ি দিয়ে পুজি ও রক্ত পড়ার কারন — ভিটামিন সি এর অভাবে।
» মানবদেহের বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজন যা — আমিষ জাতীয় খাদ্যে।

» গলগল্ড রোগ হওয়ার কারন — আয়োডিনের অভাবে।
» মানবদেহ গঠনে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন — আমিষের।
» আয়োডিন বেশি থাকে যে মাছে — সমুদ্রের মাছে।

» ম্যালিক এসিড প্রচুর — টমেটোতে পাওয়া যায়।
» ক্ষতস্থান থেকে রক্ত পড়া বন্ধ করতে সাহায্য — ভিটামিন কে।
» ভিটামিন সি হলো — অ্যাসকরবিক এসিড।

» আমিষের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি আছে — শুটকী মাছ।

» হাড় ও দাতকে মজবুত করে থাকে — ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস।
» কচুশাক বিশেষভাবে মূল্যবান যে জন্য — লৌহ উপাদানের জন্য।
» সুষম খাদ্যের উপাদান হচ্ছে– ৬ টি।

» লেবুতে বেশি থেকে যা — ভিটামিন সি।
» প্রোটিন বেশি থাকে যা — মসুর ডালে।
» চা পাতায় থাকে যা — ভিটামিন বি কমপ্লেক্স।
» কচু খেলে গলা চুলকায়, কারণ কচুতে থাকে — ক্যালসিয়াম অক্সালেট।
» রাতকানা রোগ হওয়ার— ভিটামিন এ এর অভাবে।
» মুখে ও জিহবায় ঘা হয় যে জন্য — ভিটামিন বি₂ এর অভাবে।
» পানিতে দ্রবণীয় ভিটামিন হলো — ভিটামিন বি ও সি।
» ডিমের সাদা অংশে যে প্রোটিন আছে — অ্যালবুমিন।
» আমিষের কাজ — দেহ কোষ গঠনে সাহায্য করা।

আরো কিছু পোস্ট আপনার জন্য পড়তে পারেন

 পুরুষের যৌন দূর্বলতা দূর করার টিপস জেনে নিন এক ঝলকে

ভিটামিন সি এর অভাবজনিত রোগ জেনে নিন সহজেই

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। প্রতিদিনের আপডেট পেতে আমাদের Facebook লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন।
ধন্যবাদ।

শেয়ার করতে ভুলবেন না

Check Also

এখানে খরচ

এখানে খরচ নাই ওষুধ পাই বিনা মূল্যে

এখানে খরচ নাই,ওষুধ পাই বিনা মূল্যে নরসিংদী সাদত স্মৃতি পল্লী প্রকল্পে যারা ডাক্তার দেখাতে ইচ্ছুক, ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.