Thursday , July 7 2022
Home / খেলাধুলা / ভারত কে বদলে দিয়েছেন দ্রাবিড়

ভারত কে বদলে দিয়েছেন দ্রাবিড়

ভারতীয় ক্রিকেটকে বদলে দেওয়ার কৃতিত্ব দেওয়া হয় দুজনকে—সৌরভ গাঙ্গুলী ও মহেন্দ্র সিং ধোনি। মনে করা হয়, ভারত দলের মধ্যে লড়াই করার আগ্রাসন এনে দিয়েছেন গাঙ্গুলী। আর বদলে যাওয়া ভারত দলের মানসিকতাকে পরিচর্যা করে এর ফল তুলে নিয়েছেন ধোনি। এ দুজনের মধ্যে ভারত দলকে আর যাঁরা নেতৃত্ব দিয়েছেন, তাঁদের কথা ভুলেই থাকা হয়।

ভারত
ভারত কে বদলে দিয়েছেন দ্রাবিড়

ভারত কে বদলে দিয়েছেন দ্রাবিড়

২০০৭ বিশ্বকাপে রাহুল দ্রাবিড়ের অধীনে খেলেছিল ভারত। বিশ্বকাপে দলটির সবচেয়ে বাজে স্মৃতি এই বিশ্বকাপেই। সম্ভাব্য বিজয়ীদের কাতারে থাকা দলটি গ্রুপেই ছিটকে পড়েছে। এর আগেও ভারত দলকে খুব একটা সাফল্য এনে দিতে পারেননি দ্রাবিড়। তাই অধিনায়ক দ্রাবিড়কে মনে রাখার কথা মাথায় রাখেন না কেউ। কিন্তু সুরেশ রায়নার আত্মজীবনী আড়ালে থাকা দ্রাবিড়কে পাদপ্রদীপের আলোয় নিয়ে এসেছে। বদলে যাওয়া ভারতের রূপকার হিসেবে দ্রাবিড়কেই বেছে নিয়েছেন সাবেক এই ব্যাটসম্যান।

মহেন্দ্র সিং ধোনির প্রিয় খেলোয়াড় ছিলেন। ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে বরাবরই ধোনির অধীনে খেলেছেন, এই পরিচয়ই রায়নার ভারত দলে জায়গা পাকা করে রেখেছিল, এমন অভিযোগও তোলা হতো। ধোনির প্রতি তাঁর ভালোবাসা টের পাওয়া গেছে অবসর ঘোষণায়ও। ২০২০ সালের ১৫ আগস্ট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণা করেছিলেন ধোনি। সেদিন কিছুক্ষণের মধ্যেই অবসরের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন রায়নাও।

অবসরের পর হাতে অঢেল সময় পেয়েছেন রায়না। আইপিএল আর দাতব্য কর্ম কতটুকুই-বা সময় নেয়। বাড়তি সময়টার সদ্ব্যবহার করেছেন, লিখেছেন আত্মজীবনী। ‘বিলিভ’ নামের সে বইয়ের কিছু অংশ প্রকাশিত হয়েছে।

সেখানেই জানা গেল, কেন প্রিয় অধিনায়ক ধোনির চেয়ে দ্রাবিড়কে এগিয়ে রেখেছেন রায়না, ‘সাধারণত, মানুষ যখন গত ১০-১৫ বছরে ভারত দলের উত্থান নিয়ে কথা বলে, ধোনিকে কৃতিত্ব দেওয়া হয় অথবা তাঁর আগে গাঙ্গুলীর কথা বলা হয়। এমন এক দলের ভিত্তি গড়া ও ভারতীয় ক্রিকেটকে এগিয়ে নেওয়ার কৃতিত্ব তাঁরাই পান। আমি কখনো এর সঙ্গে একমত নই। আমি কখনো বলি না, দাদা এই দল বানিয়েছেন। এটা সত্য, তিনি এবং ধোনি নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং প্রভাব ফেলেছেন। কিন্তু তিন ফরম্যাটের জন্য পরিপূর্ণ দল বানানোর কৃতিত্ব রাহুল দ্রাবিড়ের।’

ভারত দলে তরুণ খেলোয়াড়দের জায়গা নিশ্চিত করতে রাহুল কতটা চেষ্টা করতেন, সেটা বইয়ে লিখেছেন রায়না, ‘রাহুল ভাই ছিলেন একদম পরিবারের মতো। তরুণ ক্রিকেটারদের অধিকারের জন্য লড়াই করতেন। এই বাড়তি চেষ্টা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ এবং মানুষের ওপর প্রভাব রেখেছে। তরুণেরা সব সময় তাঁর কাছে গুরুত্বপূর্ণ ছিলেন। তাঁর অধীনে কাদের বেড়ে তোলা হয়েছে, দেখুন—এম এস ধোনি, ইরফান পাঠান, যুবরাজ, পীযূষ চাওলা, দিনেশ কার্তিক, মুনাফ প্যাটেল, এস শ্রীশান্ত এবং আমি। রাহুল ভাই জানতেন এই সাত বা আটটা ছেলে ভবিষ্যতে দলের মুখ হবে এবং আমাদের ঠিকঠাকভাবে গড়ে তোলার ব্যাপারটা নিশ্চিত করেছেন তিনি।’

ভারতীয় ক্রিকেটে গত কয়েক বছরে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন রাহুল দ্রাবিড়। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের দায়িত্ব নিয়ে ভারতকে দুইবার বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলেছেন। এর মধ্যে দ্বিতীয়বার বিশ্বকাপ নিয়েই ফিরেছে ভারত। এরপর জাতীয় ক্রিকেট একাডেমির পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ঘরোয়া ক্রিকেটে বয়সভিত্তিক পর্যায়ে স্বজনপ্রীতি দূর করে সত্যিকারের প্রতিভাবান খেলোয়াড়দের বের করে আনার দিকে নজর দিয়েছেন। এরই ফল পাচ্ছে ভারত। দুর্দান্ত সব তরুণ ক্রিকেটার উঠে আসছেন ভারতে। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রায় দ্বিতীয় সারির দল নিয়েই টেস্ট সিরিজ জিতে এসেছে ভারত।

ভারতে এখন বিকল্প খেলোয়াড়ের অভাব নেই। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দ্বিতীয় জাতীয় দল নিয়ে যাচ্ছে ভারত। তবু সফরকারীদেরই ফেবারিট মানা হচ্ছে—এতটাই শক্তিশালী এখন ভারতীয় ক্রিকেট। এর পেছনে দ্রাবিড়ের ভূমিকাই দেখেন সবাই। তবে রায়নার দাবি, ভারতীয় ক্রিকেটকে এগিয়ে নেওয়ার কাজটা দ্রাবিড় আরও আগেই শুরু করেছেন, ‘রাহুল ভাই ভারত দলে তরুণদের ঢোকানোর জন্য নির্বাচকদের সঙ্গে লড়তেন। আমাদের সব সময় একটা পরামর্শই দিতেন, যখন সম্ভব রঞ্জি ট্রফি খেল। সেখানে ভালো করতে থাক, বড় স্কোর কর এবং আবার ভারত দলে এসে খেল। তিনি দারুণ ম্যাচনির্ভর কোচ ও খেলোয়াড়। তিনি নিজে রাজ্য দলের হয়ে রঞ্জি ট্রফিতে খেলতেন। যখন আমরা জাতীয় ক্রিকেট একাডেমিতে অনুশীলন করতাম, তাঁকে বেশ কয়বার অভিযোগ করতেও দেখেছি। বলতেন, এখানে না খেলে আমাদের রঞ্জি ট্রফিতে খেলা উচিত।’

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে ও আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। প্রতিদিনের আপডেট পেতে আমাদের Facebook লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন।
ধন্যবাদ।

শেয়ার করতে ভুলবেন না

Check Also

বিয়ের এক

বিয়ের এক সপ্তাহ পরই মৃত্যু আরবের ফুটবলারের

বিয়ের এক সপ্তাহ পরই মৃত্যু আরবের ফুটবলারের ২২ ডিসেম্বর মাঠেই এক ফুটবলারের মৃত্যুর খবর এসেছিল। ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.