Thursday , July 7 2022
Home / স্বাস্থ্য সেবা / ভিটামিন বি এর উপকারিতা জানলে অবাক হবেন?

ভিটামিন বি এর উপকারিতা জানলে অবাক হবেন?

প্রতিটি মানুষের নির্দিষ্ট পরিমানে ভিটামিনের প্রয়োজন রয়েছে।ভিটামিন বি এর উপকারিতা অনেক। ভিটামিনবি আমাদের শরীরের কোষের স্বাস্থের উন্নয়ন করে থাকে। মারব দেহ সঠিক ভাবে বেড়ে উঠার জন্য ভিটামিন -বি অত্যন্ত জরুরি। বিভিন্ন ধরণের ভিটামিন -বি রয়েছে।এক এক ধরনের ভিটামিন এক এক কাজ করে। তাই সঠিক পরিমানে ভিটামিন গ্রহন করলে দেহ সুস্থ ও সুন্দর থাকে।ভিটামিন সাধারণত দুই শ্রেণীতে বিভক্ত। এদের একটি হচ্ছে ফ্যাট সলিউবল বা চর্বি দ্রবণীয় আর অন্যটি হচ্ছে ওয়াটার সলিউবল বা পানি দ্রবণীয়। ভিটামিন এ, ডি, ই ও কে ফ্যাট সলিউবল ভিটামিনের তালিকায় রাখা হয়েছে। আর ভিটামিন -বি ও সি ওয়াটার সলিউবল ভিটামিন এর তালিকায় রাখা হয়েছে।ভিটামিন- বি ও সি শরীরে জমা হতে পারে না কিন্তু এগুলো পানি দ্রবীভূত করে থাকে।আমাদের শরীরে যদি সঠিক মতো পানির দ্রবণ না হয়, তবে আমাদের প্রস্রাব বন্ধ হয়ে যাবে, শরীর থেকে গাম নির্গমণ বন্ধ হয়ে যাবে এবং শরীরে নানা ধরণের জটিলতা তৈরি হবে। তাই,ওয়াটার সলিউবল ভিটামিন আমাদের শরীরের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।

ভিটামিন বি
ভিটামিন বি এর উপকারিতা জানলে অবাক হবেন

ভিটামিন বি এর উপকারিতা জানলে অবাক হবেন

 

ভিটামিন -বি আমাদের শরীরে বিভিন্ন উপকার করে। ভিটামিন- বি কমপ্লেক্স এর অভাব হলে শরীরে অনেক সমস্যা দেখা দেয়। আর ভিটামিন- বি গ্রহন করলে এই গুলো থেকে সহজেই মুক্তি পাওয়া যায়।
১ ঠোঁটের কোনায় ঘাঁ ,ঠোঁট এবং তালু ফাটা গলা শুকিয়ে যাওয়া থেকে পরিত্রান পেতে ভিটামিন -বি এর সহায়তা নিন।
২.নায়াসিন ভিটামিন- বি৩ নিয়মিত খেলে শরীর দূর্বলতা ,চুলকানি ত্বক খসখসে এবং ডায়রিয়া প্রতিরোধে কাজ করে।
৩.রক্তস্বল্পতা,উচ্চ রক্তচাপ বিষন্নতা এবং ত্বকের সমস্যায় ভিটামিন -বি৬ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।
৪.থায়ামিন ভিটামিন-বি১ এর অভাব দেখা দিলে বেরিবেরি রোগ হতে পারে।বুক ধড়ফড় করা,দূর্বলতা,হাত পা ব্যাথা করা ইত্যাদি ভিটামিন -বি১ এর অভাবে হয়। আর এই রোগ গুলি থেকে মুক্ত হওয়ার জন্য
নিয়মিত ভিটামিন- বি১ গ্রহন করুন।তাই বলা যায় ভিটামিন- বি এর উপকারিতা অনেক।

 

ভিটামিন- বি এর উৎস-
আমরা প্রতিদিন বিভিন্ন ধরনের খাদ্য গ্রহণ করি। কিন্তু আমরা অনেকই জানিনা ভিটামিন -বি এর উৎস কোন কোন খাদ্যে। তাই আমাদের সকলের জানা উচিত ভিটামিন- বি এর উৎস কোন খাদ্যে আছে।ভিটামিন- বি শরীরের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় উপাদন। এগুলো হলো মাছ,মুরগীর মাংস,পাঠার মাংস ইত্যাদি খাবারে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন- বি-১ ও ভিটামিন -বি-২ থাকে।তাছাড়া দই ভুট্ট,ব্রকোলি,ফুলকপি, মাশরুম,আলু তরমুজ,বাধাকপি,কলা বিভিন্ন ধরনের বেরি ফল ইত্যাদিতে ভিটামিন- বি রয়েছে। এছাড়া আর ও অনেক খাদ্যে ভিটামিন- বি এর উৎস রয়েছে যেমন সবজি, সবুজ রঙের সবজি,বীটরুট এবং দুধের থেকে যে খাবার পাওয়া যায় যেমন ছানা চীজ দই ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন- বি থাকে।

 

ভিটামিন -বি এর প্রকারভেদ
আমরা অনেকেই ভিটামিন- বি এর প্রকারভেদ সম্পর্কে জানি না। নিচে ভিটামিন -বি এর প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা করা হলো-
ভিটামিন- বি সাধারনত ৮ প্রকার ।
১. থায়ামিন (ভিটামিন -বি১)
২. রিবোফ্লাবিন (ভিটামিন- বি২)
৩. নায়াসিন (ভিটামিন -বি৩)
৪.পেন্টোথেনিক এসিড (ভিটামিন- বি৫)
৫.পাইরিডক্সিন (ভিটামিন- বি৬)
৬.বায়োটিন (ভিটামিনবি৭)
৭.ফোলেট (ভিটামিন -বি৯)
৮. কোবালামিন (ভিটামিন -বি১২)

করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর কারণে আমাদের দেশে এতদিন সাধারণ ছুটি থাকলেও আগামীকাল থেকেই সীমিত পরিসরে অফিস খোলা হবে। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। এসময় সবচেয়ে গুরুত্ব দিতে হবে ইমিউনিটি বা রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর দিকে। আর রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন ডি এর তুলনা নেই।

বিজ্ঞাপন
স্বাস্থ্য সম্পর্কিত নানা আলোচনায় দেখা যায়, আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষের দেহে ভিটামিন ডি এর অভাব রয়েছে। ফলে এব্যাপারে বিশেষভাবে মনোযোগ দিতে হবে।

অ্যান্টিবডি তৈরিতে সাহায্য করে

বিজ্ঞাপন
চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা বলছেন, করোনাভাইরাস ফুসফুসের মারাত্মক ক্ষতি করে। ফুসফুসের কার্যক্ষমতা কমিয়ে দেয়। ফলে শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। করোনা হলে শ্বাসকষ্টের কারণেই অনেকে মারা যান। সম্প্রতি কিছু গবেষণা বলছে, ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে ভিটামিন ডি। এছাড়া শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরিতেও ভূমিকা রাখে। শুধু কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত রোগীদের জন্য নয়, এসময় প্রত্যেকেরই ইমিউনিটি বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো জরুরী। এজন্য পর্যাপ্ত ভিটামিন ডি গ্রহণে মনোযোগ দিতে হবে।

আসুন জেনে নিই ভিটামিন ডি এর উৎস সম্পর্কে-

বিজ্ঞাপন
সূর্যালোক

সূর্যের আলো ভিটামিন ডি এর ভালো উৎস। প্রতিদিন সকালে অন্তত ১৫ থেকে ২০ মিনিট রোদে থাকা ভালো। তবে বাস্তবতা হলো, লকডাউনে বাসায় থাকার কারণে গায়ে সূর্যের আলো গায়ে লাগানো কঠিন। যাদের ছাদে যাওয়ারও সুযোগ আছে তারা সকালবেলা কিছুটা সময় ছাদে হেঁটে আসতে পারেন। কারো কারো বাসার বারান্দাতেও রোদ আসে।

বিজ্ঞাপন
তবে মনে রাখা ভালো, পোশাক ও সানস্ক্রিন ত্বকে সরাসরি ভিটামিন ডি লাগতে বাধা দেয়। এছাড়া গাড়ি বা ঘরের ভেতরে জানালার কাচ ভেদ করে যে আলো আসে তাতে ভিটামিন ডি মেলে না।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন ডি

বিজ্ঞাপন
যেসব খাবারে ভিটামিন ডি থাকে

দুধ, ডিমের কুসুম, মাশরুম, মাখন, টক দই, সামুদ্রিক মাছ ও চর্বিযুক্ত খাবারে ভিটামিন ডি থাকে। যেসব প্রাণী মাঠে থাকে, প্রচুর সূর্যালোক পায় ওইসব প্রাণীর দুধ, ডিম ও যকৃতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ডি থাকে। একারণে গরুর যকৃত ভিটামিন ডি এর চমৎকার উৎস।

ভিটামিন সাপ্লিমেন্ট

দেহে ভিটামিন ডি এর অতিরিক্ত ঘাটতি দেখা দিলে সাপ্লিমেন্ট খেতে হয়ে। তবে সাপ্লিমেন্ট খেতে হয় চিকিৎসকের পরামর্শে। করোনাভাইরাসের এই সময় যেহেতু হাসপাতালে যাওয়াটা ঝুঁকিপূর্ণ ফলে এখন সাপ্লিমেন্ট না খেয়ে খাবারদাবারের প্রতি গুরুত্ব দিন। প্রতিদিন কিছুক্ষণের জন্য সূর্যালোকে থাকুন।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে তো বটেই, এছাড়া হাড়, দাঁত ও পেশী সুস্থ রাখতেও ভিটামিন ডি দরকার। শিশুর মেধা বিকাশেও সাহায্য করে ভিটামিন ডি।

রাতের খাবার হোক স্বাস্থ্যকর

বিজ্ঞাপন
রাতে খালি পেটে ঘুমাতে গেলে ঘুম ভালো হয় না। আবার ভারী খাবারও রাতে খাওয়া উচিত না। রাতের খাবার হবে হালকা। ভরা পেটে ঘুমাতে যাওয়া ঠিক না। ঘুমানোর অন্তত ২ ঘন্টা আগে রাতের খাবার খেয়ে নিন। ঘুমানোর আগে একগ্লাস উষ্ণ গরম দুধ খেতে পারেন। দুধে থাকে ট্রিপটোফ্যান, যা ভালো ঘুম হতে সাহায্য করে।

বিছানায় শোবার পর ফোনের স্ত্রিনে তাকাবেন না। রাতের ঘুম নষ্ট হওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ এটি। ভালো হয়, ঘুমাতে যাওয়ার ১ ঘন্টা আগে থেকেই ল্যাপটপ, টিভি ও ফোন ব্যবহার বন্ধ করে দিলে। বিছানায় বসে বা শুয়ে বই পড়া, টিভি দেখা বাদ দিন।

ঘুমাতে যাওয়ার আগে সারাদিনের ক্লান্তি, দুশ্চিন্তা ও মানসিক চাপ ঝেড়ে ফেলার চেষ্টা করুন। ধ্যান বা মেডিটেশন করলেও উপকার পাবেন। রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমানো ও সকালবেলা ঘুম থেকে উঠলে শরীর ও মন দুই-ই ভালো থাকবে।

বিছানায় শোবার পর ফোনের স্ত্রিনে তাকাবেন না। রাতের ঘুম নষ্ট হওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ এটি। ভালো হয়, ঘুমাতে যাওয়ার ১ ঘন্টা আগে থেকেই ল্যাপটপ, টিভি ও ফোন ব্যবহার বন্ধ করে দিলে। বিছানায় বসে বা শুয়ে বই পড়া, টিভি দেখা বাদ দিন।

ঘুমাতে যাওয়ার আগে সারাদিনের ক্লান্তি, দুশ্চিন্তা ও মানসিক চাপ ঝেড়ে ফেলার চেষ্টা করুন। ধ্যান বা মেডিটেশন করলেও উপকার পাবেন। রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমানো ও সকালবেলা ঘুম থেকে উঠলে শরীর ও মন দুই-ই ভালো থাকবে।

আরো কিছু পোস্ট আপনার জন্য পড়তে পারেন

টমেটোর উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জেনে নিন

https://www.latestbangla.com/archives/2842

কাঠ বাদামের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জেনে নিন

https://www.latestbangla.com/archives/2839

কিসমিসের উপকারিতা ও পুষ্টিগুণ জানলে অবাক হবেন?

https://www.latestbangla.com/archives/2836

গরুর দুধের পুষ্টিগুণ,জানলে অবাক হবেন?

https://www.latestbangla.com/archives/2830

পেপিনোমেলনের উপকারিতা জেনে নিন এক ঝলকে?

https://www.latestbangla.com/archives/2826

কাঁচা আমের সুস্বাদু আচার জেনে নিন সহজেই?

https://www.latestbangla.com/archives/2799

কলার উপকারিতা স্বাস্থ্যের জন্য জেনে নিন এক ঝলকে?

https://www.latestbangla.com/archives/2787

কোন ভিটামিনের কোন কাজ জেনে নিন এক ঝলকে?

https://www.latestbangla.com/archives/2780

ভিটামিন সি এর অভাবজনিত রোগ জেনে নিন সহজেই?

https://www.latestbangla.com/archives/2775

পুরুষের যৌন দূর্বলতা দূর করার টিপস জেনে নিন এক ঝলকে?

https://www.latestbangla.com/archives/2769

স্বস্তিকার ফেসবুক আইডি গায়েব!জেনে নিন এক ঝলকে?

https://www.latestbangla.com/archives/2689

সময় কাটানোর সহজ পাঁচটি উপায়!জেনে নিন?

https://www.latestbangla.com/archives/2684

নাক দেখে মানুষ বুঝে নিন কে কেমন

https://www.latestbangla.com/archives/2517

কাদেরকে বিবাহ করা বৈধ এবং অবৈধ! জেনে নিন,

https://www.latestbangla.com/archives/2514

কতটুকু প্রেম আছে আপনার হৃদয়ে একটি কুইজের মাধ্যমে জেনে নিন

https://www.latestbangla.com/archives/2511

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। প্রতিদিনের আপডেট পেতে আমাদের Facebook লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন।
ধন্যবাদ।

শেয়ার করতে ভুলবেন না

Check Also

এখানে খরচ

এখানে খরচ নাই ওষুধ পাই বিনা মূল্যে

এখানে খরচ নাই,ওষুধ পাই বিনা মূল্যে নরসিংদী সাদত স্মৃতি পল্লী প্রকল্পে যারা ডাক্তার দেখাতে ইচ্ছুক, ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.