Tuesday , August 3 2021
Home / স্বাস্থ্য সেবা / দাঁত ক্ষয় হওয়ার কারণ জানলে অবাক হবেন?

দাঁত ক্ষয় হওয়ার কারণ জানলে অবাক হবেন?

দাঁত ক্ষয় হওয়ার কারণ অনেক। আমারা প্রতিদিন বিভিন্ন খাদ্য খেয়ে থাকি। এবং প্রতিদিন কম পক্ষে দুই বার ব্রাশ করি এবং এই ব্রাশ করার সময়টা যদি আমরা অধিক সময় নিয় তাহলে দাঁতের এনামেল নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এই ক্ষেত্রে পুরোপুরিভাবে এনামেল নষ্ট হয়ে গেলে দাঁত ক্ষয় হতে শুরু করে ফলে মাড়ি ও দাঁতের গোড়া বা মূল ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আর এটি আমাদের যে কোনো বয়সী মানুষের দাঁতের ক্ষয়জনিত রোগ হতে পারে। এটি হঠাৎ করেই হয় না।প্রথম দিকে দাঁতের উপরিভাগে এনামেল নষ্ট হতে থাকে, যা খালি চোখে দেখা যায় না।

দাঁত
দাঁত ক্ষয় হওয়ার কারণ জানলে অবাক হবেন

 

দাঁত ক্ষয় হওয়ার কারণ জানলে অবাক হবেন

দাঁত আমাদের মহামূল্যবান সম্পদ। কথায় আছে দাঁত থাকতে দাঁতের মর্ম বোঝে না। দাঁত একবার ক্ষয় প্রাপ্ত হয়ে গেলে তা পূরণ করা কঠিন। তাই নিয়মিত দাঁতের সঠিক ভাবে যন্ত নিতে হবে। যেনে নিই দাঁত ক্ষয় হওয়ার কারণ।

অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায় অলসতার বসে রাত্রে ব্রাশ করা হয় না। ফলে দাতের সমস্যা দেখা দেয়।নিয়মিত দাঁতের যন্ত না নিলে এই সমস্যা বেশি দেখা দেয়। ফলে দাঁতের বিভিন্ন সমস্যা যেমন দাঁতব্যথা, ইনফেকশন, এমনকি দাঁত পড়ে যাওয়ার মতো কারণ হতে পারে।খাদ্য গ্রহনের পরে দাত পরিষ্কার না করলে আমাদের দাঁত ও মাড়িতে এক ধরনের স্বচ্ছ ও আঠালো পদার্থ জমতে দেখা যায়, যার নাম প্লাক। আর এতে অসংখ্য ব্যাকটেরিয়া থাকে, যা আমদের গ্রহণ করা খাদ্যবস্তুতে উপস্থিত সুগার বা চিনির ওপর নির্ভর করে এরা বেঁচে থাকে। এই ব্যাকটেরিয়া থেকে এক ধরনের অ্যাসিড তৈরি হয়,যা খাবার খাওয়ার ২০ মিনিট বা এর বেশি সময় ধরে দাঁতের ক্ষতি করতে থাকে। আর এ ক্ষতিকর অ্যাসিডের প্রভাবে এনামেল নষ্ট হয় ও দাঁত ক্ষয় হয়ে যায়। তাছাড়া আরও যেসব কারণে দাঁতের ক্ষয়রোগ দেখা দিয়ে থাকে সেগুলো হলোÑ নিয়মিত ফ্লসিং ও ব্রাশ না করা। পান, সিগারেট,জর্দ্দা গুল ইত্যাদি ব্যবহার করলে ক্ষয় সাধন হয়। আর ও কিছু কারণ যেমন চিনিযুক্ত ও কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার বেশি খাওয়া।এর কারণে ফ্লোরাইডের অভাব দেখা দেয়। ফ্লোরাইড অ্যাসিড ও প্লাক থেকে দাঁত সুরক্ষিত রাখে এবং ক্ষয় প্রতিরোধ করে ও মুখের লালা শুকিয়ে যাওয়া। এই লালা আমাদের দাঁতে আটকা থাকা খাদ্যকণা ও ক্ষতিকর সুগার প্রতিরোধ করে এবং দাঁতক্ষয় থেকে রক্ষা করে।লালা শুকাণোর কিছি কারণ রয়েছে যেমন কোন কারণে মুখ দিয়ে শ্বাস নিলে ও নির্দিষ্ট কিছু ওষুধ ব্যবহারে মুখের লালা শুকিয়ে যায়। বয়স্কদের ও ডায়াবেটিস থাকলে এ সমস্যা বেশি হয়। । বয়স্কদের তুলনায় শিশুদের এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। বিশেষ করে যাদের দাঁত এখনো পুরোপুরিভাবে ওঠেনি, তাদের এ সমস্যা বেশি হয়। কারণ এ সময় দাঁতে মিনারেলের পরিমাণ কম থাকে। এর কারণে দ্রুত দাঁত নষ্ট হতে শুরু করে।

দাঁত ক্ষয় রোধের উপায়
দাঁত ক্ষয় রোধের উপায় হলো-দাঁতের ক্ষয়জনিত সমস্যা প্রতিরোধে চিনি ও মিষ্টিজাতীয় খাবার সীমিত পরিমাণে খাওয়া। মিষ্টিজাতীয় খাবার খাওয়ার পর আবশ্যই মুখের অভ্যন্তরে ভালোভাবে পরিষ্কার করা। তবে মিষ্টি জাতীয় খাদ্য খাওয়ার পর পনির খেলে তা ওরাল ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধে সাহায্য করে। ক্যাফেইন ও ধূমপানের কারণে মুখের লালা শুকিয়ে যায় ফলে এটি না খাওয়া। চিনিবিহীন চুয়িংগাম মুখে লালার পরিমাণ ঠিক রাখে। শিশুর খাবারে আলাদাভাবে চিনি বা মিষ্টি বাড়ানোর জন্য কানো উপাদান ব্যবহার করা যাবে না।

আরো কিছু পোস্ট আপনার জন্য প্রয়োজনে দেখতে পারেন

মানসিক রোগসমূহের লক্ষণ ও প্রতিকার জেনে নিন

https://www.latestbangla.com/archives/3643

ঢেঁড়সের পানীয় রোগ প্রতিরোধে খুবই কার্যকারী

https://www.latestbangla.com/archives/3520

ফুসফুসের সুরক্ষায় যা করবেন সচেতন হোন খুব সহজেই?

https://www.latestbangla.com/archives/3515

পাইলস রোগের চিকিৎসা পদ্ধতি জেনে নিন

https://www.latestbangla.com/archives/3512

 

সুস্থ থাকুন, নিজেকে এবং পরিবারকে ভালোবাসুন। আমাদের লেখা আপনার কেমন লাগছে আপনার যদি কোনো প্রশ্ন থাকে তবে নিচে কমেন্ট করে জানান। আপনার বন্ধুদের কাছে পোস্টটি পৌঁছে দিতে দয়া করে শেয়ার করুন। পুরো পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। প্রতিদিনের আপডেট পেতে আমাদের Facebook লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন।
ধন্যবাদ।

শেয়ার করতে ভুলবেন না

Check Also

রোগ

রোগ প্রতিরোধে ক্ষমতা বাড়াতে ও সুস্থ থাকতে প্রতি দিন পাতে রাখুন এই খাবার

লকডাউনের মরসুমে খাওয়াদাওয়ার অনিয়ম, মানসিক দুশ্চিন্তায় অনিদ্রা, শারীরিক কসরত, জিম, যোগব্যায়াম ক্লাস বন্ধ— সব মিলিয়ে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *